আপনার জানার ও বিনোদনের ঠিকানা

স্কুল থেকে শিক্ষক-শিক্ষিকা লাপাত্তা, ফ্যাক্ট পরকীয়া’

নিজস্ব প্রতিবেদক: গাজীপুর মহানগরীর টঙ্গীর একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের একজন শিক্ষক ও অপর এক শিক্ষিকা স্কুল থেকে লাপাত্তা হয়েছেন। এ ঘটনায় প্রতিষ্ঠানটির অধ্যক্ষের ভূমিকায় সাধারণ শিক্ষকদের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক শিক্ষক জানান, টঙ্গী সফিউদ্দিন সরকার একাডেমি অ্যান্ড কলেজের দিবা শাখার একজন শিক্ষিকা মাতৃত্বকালীন ছুটিতে রয়েছেন। অধ্যক্ষ কারো সঙ্গে পরামর্শ না করেই ওই শিক্ষিকার স্থলাভিষিক্ত হিসেবে ব্যক্তিগতভাবে তার পছন্দের একজন শিক্ষিকাকে অস্থায়ীভাবে নিয়োগ দিয়েছেন।

বুধবার ওই শিক্ষক বলেন, দুই সন্তানের জননী ওই শিক্ষিকা স্কুলটিতে শিক্ষক হিসেবে সুযোগ পেয়েই বিভিন্ন বিতর্কের জন্ম দেন। ইতোপূর্বেও দুইজন শিক্ষকের সঙ্গে তার মন দেওয়া-নেওয়ার ঘটনা ফাঁস হলে তাদের সতর্ক করা হয়। অবশেষে তৃতীয়বার আমাদের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের একজন শিক্ষককে প্রেমে জড়িয়ে ফেলেন ওই শিক্ষিকা।’

একপর্যায়ে গত ২৫ জানুয়ারি স্কুলে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার দিন সবার অজান্তে তারা উধাও হয়ে যান। এরপর থেকে তাদের আর কোনো হদিস মিলছিল না। গত ২৮ জানুয়ারি স্কুলের বার্ষিক বনভোজনেও তারা উপস্থিত ছিলেন না। এরই মধ্যে তারা ঢাকায় গিয়ে কোর্ট ম্যারেজ করেছেন বলে সহকর্মীদের কাছে খবর আসে।

এদিকে শিক্ষিকার স্বামী স্কুলে গিয়ে আলোচিত শিক্ষকের বিরুদ্ধে মৌখিকভাবে নালিশ করেছেন এবং দুই সন্তানের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে তার স্ত্রীকে ফেরত দেওয়ার আকুতি জানান; কিন্তু রহস্যজনক কারণে অধ্যক্ষ বুধবার পর্যন্ত এ ব্যাপারে কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি। বরং ‘পুরস্কার’ হিসেবে ইংরেজি বিষয়ের আলোচিত ওই শিক্ষককে নতুন কারিকুলামের জন্য বাছাই করে প্রশিক্ষণে পাঠিয়েছেন।

এ ব্যাপারে দিবা শাখার সহকারী শিফট ইনচার্জ ইয়াসমিন নাহার বুধবার বলেন, ওই শিক্ষিকার স্বামী যখন নালিশ নিয়ে আমাদের কাছে এসেছিলেন তখন আমরা স্পোর্টস নিয়ে ব্যস্ত ছিলাম। এরপর স্কুল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় পরে কী হয়েছে তা জানা নেই। বর্তমানে তারা স্কুলে আসছেন না।

ওই প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ মনিরুজ্জামান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আপনারা এত দ্রুত খবর পান কিভাবে? ওই শিক্ষিকা আমার স্কুলের নিয়মিত শিক্ষক নন, সে ইংরেজিতে খুব ভালো। তাই মাতৃত্বকালীন ছুটিতে থাকা একজন শিক্ষিকার স্থলাভিষিক্ত হিসেবে তাকে মৌখিকভাবে নিয়োগ দিয়েছিলাম।

বর্তমানে ওই শিক্ষক-শিক্ষিকা কোথায় আছেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, স্কুল খোলার পর জানা যাবে।

এ ব্যাপারে ওই আলোচিত শিক্ষকের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ঘটনা সম্পূর্ণ অস্বীকার করে বলেন, যা শুনছেন এসব কিছুই না- সবই গুজব ও মিথ্যা।

কোথায় আছেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি এখন ট্রেনিংয়ে আছি। এরপর তিনি আর কিছু না বলে দ্রুত ফোন কেটে দেন।

এ ব্যাপারে আলোচিত শিক্ষিকার সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি।’

Facebook
Twitter
WhatsApp
Pinterest
Telegram

এই খবরও একই রকমের

আন্দোলনের মাধ্যমেই তত্ত্বাবধায়কের দাবি আদায়ে সরকারকে বাধ্য করব

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আজ সমগ্র জাতি সরকার পরিবর্তনে ঐক্যবদ্ধ হয়ে গেছে। এই সরকারের অধীনে আমরা নির্বাচনে যাব না। জনগণের প্রতিনিধিকে ক্ষমতায়

রাজবাড়ীতে নিজ বাড়িতে বৃদ্ধাকে কুপিয়ে হত্যা

একে আজাদ রাজবাড়ীঃ রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার সরিষা ইউনিয়নের প্রেমটিয়া গ্রামে আশালতা দাস (৭৫) নামের এক বৃদ্ধাকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত রাতের

‘আজ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার আঞ্চলিক পরিচালক পদে অভিষেক সায়মার’

নিজস্ব প্রতিবেদক: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার আঞ্চলিক পরিচালক হিসেবে আনুষ্ঠানিক দায়িত্ব গ্রহণ করতে যাচ্ছেন বঙ্গবন্ধু দৌহিত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কন্যার সায়মা ওয়াজেদ পুতুল।

‘স্থায়ী জামিন পেলেন ড. ইউনূস’

নিজস্ব প্রতিবেদক: মামলা নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত স্থায়ী জামিন পেয়েছেন নোবেলজয়ী ড. মুহাম্মদ ইউনূস। এর আগে সকালে শ্রম আপিল ট্রাইব্যুনালে জামিন চেয়েছিলেন তিনি। সেই সঙ্গে

চীনে ৫.৫ মাত্রার শক্তিশালী ভূমিকম্প,ধসে পড়েছে ১২৬টি বাড়ি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: পূর্ব চীনের শানডং প্রদেশের পিংইয়ুয়ান কাউন্টিতে শক্তিশালী ভূমিকম্প অনুভূত হয়েছে। আজ রোববার ভোরে ৫ দশমিক ৫ মাত্রার এ কম্পন অনুভূত হয়। এতে আহত

‘মনোনয়নপ্রত্যাশীর সংখ্যাই প্রমাণ করে নারী জাগরণ ঘটেছে: প্রধানমন্ত্রী’

ঠিকানা টিভি ডট প্রেস: আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দ্বাদশ জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনের মনোনয়নপ্রত্যাশী ১৫৫৩ জন। এ সংখ্যাই প্রমাণ করে,