আপনার জানার ও বিনোদনের ঠিকানা

যশোরে বাবার কাছে এসে নিখোঁজ, শিশুকন্যা জোনাকির মরদেহ উদ্ধার

জেমস আব্দুর রহিম রানা: যশোরে নিখোঁজের একদিন পর শহরের রেলগেট মডেল মসজিদের পশ্চিম পাস থেকে জোনাকি খাতুন(৯) নামে এক কিশোরী  মরদেহ উদ্ধার হয়েছে। মঙ্গলবার (২এপ্রিল) দুপুর দুই টার দিকে যশোর শহরের রেল গেটের একটি পুকুর থেকে তার মৃত্যু দেহ উদ্ধার করেছে যশোর কোতোয়ালী থানা পুলিশ। তার গলা, পা ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে একাধিক আঘাতের চিহ্ন দেখা গেছে। এটি দুর্ঘটনা নয় দাবি স্থানীয়দের। অনেকের অভিযোগ সৎ মা নার্গিস বেগম মেয়েটিকে হত্যার পর ডোবায় ফেলে নিখোঁজ হয়েছে বলে প্রচার দেয়।
পুলিশ এ ঘটনায় নিহতের বাবা শাহীন তরফদার, সৎমা নার্গিস ও সৎ নানীকে হেফাজতে নিয়েছে।
নিহত জোনাকি খাতুন বেনাপোল থানা এলাকার পোড়াবাড়ি নারানপুর এলাকার শাহীন তরফদারের মেয়ে। শাহীন যশোর রেলগেটে ভাড়া বাসা নিয়ে  শহরে ইজিবাইক চালাতেন। সে গতকাল সকাল দশটার দিকে ইজিবাইক নিয়ে বের হলে মেয়ে জোনাকি বাবার সঙ্গে যাবে বলে বাহানা করেন। এ সময়ে তিনি বাসার ২০০ গজ দূরের একটি দোকান থেকে জোনাকিকে মিষ্টি কিনে দিয়ে বাড়িতে পাঠান। দুপুরে তিনি বাড়িতে এসে মেয়েকে না পেয়ে চারিদিকে খোঁজাখুঁজি করেন। খোঁজ নেন আত্মীয়-স্বজনের বাড়িতেও। এক পর্যায়ে কোথাও না পেয়ে সন্ধ্যায় তিনি ডিবি পুলিশকে জানান এবং কোতয়ালি থানায় একটি ডায়েরী করেন। এরপর ডিবি পুলিশের এসআই মফিজুল ইসলাম তার নিজস্ব ফেসবুক আইডিতে ‘একটি নিখোঁজ সংবাদ’ শিরোনামে জোনাকির ছবিসহ একটি পোস্ট দেন। এরপর প্রতিবেশীরা আজ মঙ্গলবার দুপুরে বাসার ১০০ গজ দূরে একটি ডোবার পানিতে তার মৃতদেহ ভাসতে দেখে পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মৃত্যুদেহটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য যশোর জেনারেল হাসপাতালে পাঠান। তার গলায়, বুকে ও হাঁটুতে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

আজ মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) সকালে বাড়ির পাশের একটি ডোবা থেকে মেয়েটির ক্ষত বিখ্যাত মরদেহ উদ্ধার হয়। এ ঘটনায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একটি সংস্থা প্রধান সন্দেহভাজন সৎ মা নার্গিস বেগম, সৎ নানী  ও বাবা শাহীন তরফদারকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হেফাজতে নিয়েছে।
জানাযায়, বেনাপোলের পোড়াবাড়ীর শাহীন তরফদার প্রথম স্ত্রীকে তালাক দিয়ে নার্গিসকে বিয়ে করেন। তিনি বেনাপোল থেকে যশোর রেল গেটে ভাড়া বাড়িতে বসবাস করছিলেন। অন্যদিকে, শিশু কন্যা জোনাকি থাকতো তার দাদা-দাদির কাছে। পাঁচ দিন আগে শিশু কন্যা জোনাকি বাবাকে দেখতে রেল গেটের ভাড়া বাড়িতে আসে। সোমবার তার সৎ মা প্রচার দেয় আমাদের জোনাকিকে পাওয়া যাচ্ছে না। এনিয়ে প্রতিবেশিদের মধ্যে নানা কানা-ঘুষা চলছিলো। শেষ পর্যন্ত আজ সকালে পাওয়া গেল তার লাশ। এ বিষয়ে পুলিশ প্রকৃত ঘটনা উদঘাটনে কাজ করছে।
নিহতের ভাই তাওহিদ হোসেন চয়ন জানায়, আমরা তিন বোন আর এক ভাই। পাঁচ বছর আগে আমার মায়ের সাথে আমার বাবার বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। আমার মা এখন তুরস্ক আছে। বাবা সৎ মা নার্গিস বেগমকে নিয়ে রেলগেট পশ্চিমপাড়া মডেল মসজিদের পাশে ভাড়া বাসায় থাকে। গত পাঁচদিন আগে বোন জোনাকি বেনাপোল পোড়াবাড়ি থেকে বাবার বাসায় রেলগেটে আসে। সোমবার সকাল ১০টা থেকে থেকে বোনকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিলো না। এরপর ডিবি পুলিশকে জানিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস এবং কোতোয়ালী থানায় সাধারণ ডায়েরি করি। মঙ্গলবার বাবার বাসার পাশে পরিত্যক্ত পুকুর পাড় থেকে বোনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। আমার সৎ মার সাথে আমাদের বনিবনা হচ্ছিলো না। আমার ধারণা আমার বোনকে হত্যা করা হয়েছে। এবং ওই হত্যাকাণ্ডের সাথে আমার সৎ মা জড়িত।
নিহতের দাদি সুখবানু বলেন, আমার ছেলে শাহিন দ্বিতীয় বিয়ে করে যশোর রেলগেটে থাকে। গত ৬ দিন আগে আমার পুতনি আমার ছেলে শাহিনের কাছে বেড়াতে আসেন। গতকাল বেলা বারোটার দিকে জানতে পারি জোনাকিকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। সাথে সাথে বাড়ি থেকে যশোরের উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। যশোর পৌঁছাতে পৌঁছাতে দুপুর ২ টা বেজে যায়। এরপর আশেপাশের ডুবা নালা সব জায়গায় খোঁজাখুঁজি করি কিন্তু কোথাও তাকে পাওয়া যায়নি। আজ মঙ্গলবার দুপুরে লোকজন এসে বলে জোনাকির মৃতদেহ পাশের ডোবার ভার্সছে। তিনি অভিযোগ করে বলেন পরিকল্পিতভাবে জোনাকিকে আশেপাশের কোথাও হত্যা করে এখানে মৃতদেহ ফেলে রেখে গেছে। তিনি এ হত্যাকাণ্ডের সুষ্ঠু বিচার দাবি করেছেন।
প্রতিবেশী হনূফা জানান, গতকাল সকালে দেখছিলাম তার বাবার সঙ্গে যেতে। এরপর থেকে আর তাকে দেখিনি। ধারণা করা হচ্ছে আশেপাশে তাকে হত্যা করে মৃত্যুদেহটি ডোবার এক হাত পানিতে ফেলে রেখে যাওয়া হয়েছে।
প্রতিবেশী নাজমা বলেন, গত সোমবার দুপুরের পরে জানতে পারি জোনাকিকে পাওয়া যাচ্ছে না। এরপর আজ দুপুরে তার মৃত্যু দেহটি বাড়ির পাশের একটি ডুবার এক হাত পানিতে ভাসতে দেখি। অতটুকু পানিতে একটা নয় দশ বছরের কিশোরী মেয়ে ডুবে মারা যাওয়া একেবারেই অসম্ভব। তাছাড়া জোনাকি সাঁতারও জানতো। আশেপাশের কোন জায়গায় তাকে হত্যা করে মৃত্যু দেহ ওখানে ফেলে রাখা হয়েছে বলে জানান এ নারী।

বিষয়টি নিয়ে যশোর কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুর রাজ্জাকের মুঠোফোনে সংযোগ দিয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে দুপুরে ঘটনাস্থলে গিয়ে মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য যশোর জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে সৎ মা’ এই হত্যাকান্ডের সঙ্গে জড়িত। এ ঘটনায় সৎ মা’ নার্গিস ও তার মাকে হেফাজতে নেয়া হয়েছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তাছাড়া এ ঘটনায় থানায় এখনো মামলা দায়ের হয়নি। থানায় মামলা দায়ের হলে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Facebook
Twitter
WhatsApp
Pinterest
Telegram

এই খবরও একই রকমের

‘জামিন পেল বিএনপির নেতা মেজর হাফিজ’

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজধানীর গুলশান থানার মামলায় দণ্ডিত বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব.) মো. হাফিজ উদ্দিন আহমেদের জামিন মঞ্জুর করেছেন আদালত। রোববার (১০ মার্চ) ঢাকা মহানগর

সাংবাদিক ইলিয়াস হোসেনের বিচার সম্পর্কে যে তথ্য জানা গেল

বাংলা পোর্টাল: মিতু হত্যা মামলায় মিথ্যা ও অসত্য তথ্য সরবরাহ করা এবং তা প্রচারের অভিযোগে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) এর প্রধান বনজ কুমার মজুমদারের

‘বাংলাদেশের বিষয়ে কেন যুক্তরাষ্ট্র ভারতের কথাই শুনল’

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশের বিষয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র যে হুঙ্কার দিয়েছিল, ভয় ভীতি দেখিয়েছিল তা কেটে গেছে। বরং গত বৃহস্পতিবার মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র ম্যাথিউ মিলার সুস্পষ্টভাবে

আধুনিকায়ন করে বন্ধ থাকা রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল চালুর দাবি সিপিবির

বর্তমান ও অতীতের সরকারের রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল বন্ধের সমালোচনা করে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) সাধারণ সম্পাদক কমরেড রুহিন হোসেন প্রিন্স বলেছেন, লিজ বা ব্যক্তিমালিকানার নামে জাতীয়

সন্ধ্যার মধ্যে ১২ জেলায় তীব্র ঝড়ের পূর্বাভাস’

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকাসহ দেশের ১২ জেলার ওপর দিয়ে তীব্র ঝড়ের পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অফিস। সেইসঙ্গে বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে বলে জানানো হয়েছে। রোববার (৭ এপ্রিল’)

কোর্টে পাঠানো হল রহস্যময় চিঠি, খুলতেই অসুস্থ দুই বিচারপতি’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: একটি আদালতে বিচারপতির কাছে একটি চিঠি পাঠানো হয়েছিল। আর সেই চিঠি খোলার পরই অসুস্থ হয়ে গেলেন দুই বিচারপতি। চিঠির মধ্যে সন্দেহজনক পাউডার রাখা