আপনার জানার ও বিনোদনের ঠিকানা

‘জাসদের ঐক্য চেষ্টা: বেরিয়ে যেতে পারে ১৪ দল থেকে’

নিজস্ব প্রতিবেদক: নির্বাচনে ভরাডুবির পর জাসদ এখন তার তিনটি অংশের মধ্যে ঐক্যের চেষ্টা করছে। আ স ম আব্দুর রবের নেতৃত্বে জেএসডি, হাসানুল হক ইনুর জাসদ এবং শরীফ নুরুল আম্বিয়ার জাসদের মধ্যে ঐক্যের গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে। আওয়ামী লীগের বলয় থেকে বেরিয়ে পৃথক অবস্থান নেওয়ার জন্যই জাসদের কেউ কেউ এই ঐক্য প্রক্রিয়া করছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এবার নির্বাচনে জাসদের প্রধান নেতা হাসানুল হক ইনু পরাজিত হয়েছেন। তার এই পরাজয় জাসদ সহজভাবে নিতে পারেনি। জাসদের অভ্যন্তরীণ মূল্যায়ন হলো আওয়ামী লীগের একটি অংশ তাকে জোর করে হারিয়ে দিয়েছে। কুষ্টিয়ায় যে আসনটিতে ইনু পরাজিত হয়েছেন, সেই আসনটি ঐতিহাসিক ভাবে আওয়ামী লীগের আসন এবং প্রভাবশালী নেতা মাহবুবউল আলম হানিফের সঙ্গে হাসানুল হক ইনুর দীর্ঘদিনের রাজনৈতিক বিরোধ রয়েছে।’

তবে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতারা বলেন, জাসদের হাসানুল হক ইনু জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছিলেন। স্থানীয় আওয়ামী লীগের সঙ্গে কোন রকম যোগাযোগই রাখেননি। সবচেয়ে বড় কথা হলো, তিনি নির্বাচনের আগেই শুধু নির্বাচনী প্রচারণা করেছেন। সারাবছর তিনি কোন কর্মকাণ্ডই করেননি, শুধু আওয়ামী লীগের বিরোধিতা করা ছাড়া। আর এই সমস্ত পাল্টাপাল্টি অভিযোগের পর হাসানুল হক ইনু এখন আওয়ামী লীগের ব্যাপারে নেতিবাচক অবস্থান গ্রহণ করেছেন। এই নেতিবাচক অবস্থার প্রমাণ পাওয়া যায় যখন তিনি তার দল সংরক্ষিত আসনের জন্য মনোনয়ন নিতে অস্বীকৃতি জানায়।

একটি সূত্র নিশ্চিত করেছে যে, প্রধানমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা জাসদের শিরীন আখতারকে সংরক্ষিত আসনে মনোনয়নের জন্য পরিকল্পনা গ্রহণ করেছিলেন। নির্বাচনের আগেও তিনি জাসদকে আশ্বস্ত করেছিলেন যে, শিরীন আখতারকে মনোনয়ন দেওয়া হবে। কিন্তু জাসদের পক্ষ থেকেই আওয়ামী লীগকে জানিয়ে দেওয়া হয় যে, তারা সংরক্ষিত আসনে জাসদের কাউকে দিতে চান না। আর এ কারণেই আওয়ামী লীগ শেষ পর্যন্ত ৪৮ টি আসনেই তাদের নিজস্ব পছন্দের প্রার্থীদেরকে মনোনীত করেছে। শিরীন আখতারের সংরক্ষিত আসনে মনোনয়ন গ্রহণ না করাটা ইঙ্গিতবাহী বলে মনে করছে।

নির্বাচনের পর থেকেই আওয়ামী লীগের বলয় থেকে বেরিয়ে যাওয়া অর্থাৎ ১৪ দল থেকে বেরিয়ে যাওয়ার জন্য জাসদের কোন কোন নেতার পক্ষ থেকে দাবি উঠছে। জাসদও এখন একটি পৃথক অবস্থান গ্রহণ করতে চায়। আওয়ামী লীগ তাদের অবজ্ঞা করছে, আওয়ামী লীগের কাছে জাসদ গুরুত্বহীন। এ কারণেই জাসদকে আওয়ামী লীগ এখন খুব একটা পাত্তা দিচ্ছে না-এমন অভিযোগ জাসদের নেতাদের।

নির্বাচনের আগে থেকেই আ স ম আব্দুর রবের জেএসডি এবং শরীফ নুরুল আম্বিয়ার জাসদের সঙ্গে হাসানুল হক ইনুর জাসদের কিছু নেতার যোগাযোগ হচ্ছিলো। বাংলাদেশের রাজনীতিতে একটি গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক শক্তি হিসেবে নিজেদেরকে পুনঃপ্রতিষ্ঠার জন্য ঐক্যবদ্ধ জাসদের কথা বলা হচ্ছিলো বেশ আগে থেকেই। এখন নির্বাচনে বিপর্যয়ের পর ইনুও এরকম করতে আগ্ৰহী। আর এরকম প্রক্রিয়া যদি শেষ পর্যন্ত চলতে থাকে তাহলে জাসদ ১৪ দল থেকে বেরিয়ে যেতে পারে। অন্যদিকে, তিনটি জাসদ নিয়ে একটি ঐক্যবদ্ধ জাসদ গঠন করা হতে পারে। তবে জাসদের একজন নেতা ১৪ দলের মৃত্যুর জন্য আওয়ামী লীগকে দায়ী করেছে। তারা বলেছে, আওয়ামী লীগেই তার শরিকদেরকে নূন্যতম সম্মান দিচ্ছে না, ১৪ দল এখন কার্যত মৃত।’

Facebook
Twitter
WhatsApp
Pinterest
Telegram

এই খবরও একই রকমের

জামায়াতে দুই দিনের কর্মসূচি ঘোষণা

নিজস্ব প্রতিবেদক: সারা দেশে তীব্র তাপপ্রবাহে হিট অ্যালার্টের মধ্যে আল্লাহর রহমতের বৃষ্টির জন্য ইসতিসকার নামাজ আদায়ের কর্মসূচি দিয়েছে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী। মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল’) এক

সিরাজগঞ্জে ঘুমন্ত অবস্থায় মাকে জবাই করে হত্যার দায়ে ছেলেকে মৃত্যুদন্ড দিয়েছে আদালত

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি: সিরাজগঞ্জে মাকে গলাকেটে হত্যার দায়ে ছেলে নাহিদ ইমরান নিয়নকে (৪০) মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে আদালত। একই সঙ্গে ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড করা হয়েছে।’ রোববার (১০

‘হস্তশিল্পকে বর্ষপণ্য ঘোষণা প্রধানমন্ত্রীর’

নিজস্ব প্রতিবেদক: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নারীর ক্ষমতায়নে ভূমিকা রাখায় এ খাতে বিশেষ নজর দিতে ‘’হস্তশিল্প’’কে ‘বর্ষপণ্য’ হিসেবে ঘোষণা করেছেন। তিনি বলেন,“আমি হস্তশিল্পকে ২০২৪ সালের পণ্য

ডলার সংকট, বাজারে বড় ধাক্কা

ঠিকানা টিভি ডট প্রেস: ডলারের সংকট দীর্ঘদিনের। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে আমদানিতে লাগাম টানা হয়েছে। এতে কমেছে অনেক পণ্যের আমদানি। যার প্রভাব পড়ছে বাজারে। দেশে ব্যবহৃত

‘ভারত বিরোধিতা করেই কাছে যেতে চায় বিএনপি

নিজস্ব প্রতিবেদক: নির্বাচনের পর বিএনপি তার আন্তর্জাতিক কূটনীতি কৌশল পরিবর্তন করেছে। নির্বাচনের আগে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং পশ্চিমা দেশগুলোর প্রিয়ভাজন হওয়ার জন্য বিএনপি নিরন্তর চেষ্টা করেছিল।

‘সীমান্তে মৃত্যুর ঘটনা হত্যাকাণ্ড নয়, দুর্ঘটনা’’

নিজস্ব প্রতিবেদক: সীমান্তে মৃত্যুর ঘটনা হত্যাকাণ্ড নয় মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা উপদেষ্টা মেজর জেনারেল (অব.) তারিক আহমেদ সিদ্দিক বলেছেন, সীমান্তে হত্যাকাণ্ড পরিকল্পিত কিছু না। এটি