আপনার জানার ও বিনোদনের ঠিকানা

শাড়ি বাংলাদেশের টাঙ্গাইলের কিন্তু নিয়ে গেল ভারত-এ কেমন প্রহসন

জহুরুল ইসলাম টাঙ্গাইল প্রতিনিধি: টাঙ্গাইল শাড়ি-নামটাই যেখানে এ শাড়ির পরিচয় বহন করে সেই শাড়ি নাকি ভারতের! তাতশিল্পে সমৃদ্ধ বাংলাদেশের এই নামকড়া জেলাটি যে ভারতর অংশ সেটি বোধকরি বাংলাদেশের এই জনপ্রিয় পণ্যটি ভারত গোপনে নিজেদের করে হাতিয়ে নেয়ার আগে আমরা কেউই জানতাম না!

গত বৃহস্পতিবার বাংলাদেশের বিখ্যাত টাঙ্গাইল শাড়িকে নিজস্ব জিআই পণ্য হিসেবে স্বীকৃতি দেয় ভারতের বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রণালয়। ভারতের সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয় তাদের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে এক পোস্টে বলে, ‘টাঙ্গাইল শাড়ি পশ্চিমবঙ্গ থেকে উদ্ভূত। এটি ঐতিহ্যবাহী হাতে বোনা মাস্টারপিস। এর মিহি গঠন, বৈচিত্র্যময় রং এবং সূক্ষ্ম জামদানি মোটিফের জন্য বিখ্যাত। এটি এ অঞ্চলের সমৃদ্ধ সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের প্রতীক।’

উদ্ভট এবং সেই সাথে হাসি পাওয়ার মতো ঘটনা মনে হলেও আদতে এই নির্মম সত্য যে বর্তমানে বাংলাদেশের প্রত্যেকটি মানুষের মনে বিশেষ করে টাঙ্গাইলবাসীর মনে প্রতিনিয়ত কাঁটার মতো বিঁধছে সে খবর কারোরই অজানা নয়।

বাংলাদেশের টাঙ্গাইল জেলার তাতী ভাইদের আবেগ এই টাঙ্গাইল শাড়ি। এর সাথে জড়িয়ে আছে আমাদের দেশের সমৃদ্ধ ঐতিহ্য ও ইতিহাস। যে শাড়ি বাংলাদেশের অন্যতম প্রাচীন কুটির শিল্পের প্রতিনিধিত্ব করে সে শাড়ির স্বত্ব একরকম হুট করেই সবার অগোচরে ভারত নিজের নামে জিআই স্বত্ব করে নিয়ে গেল। এবারও ঠিক আগেকার মতোই ‘রসগোল্লা’ এবং ‘নকশিকাঁথা’র জিআই স্বত্বের মতো আমাদের টাঙ্গাইল শাড়ির জিআই স্বত্বও তাদের! এমনভাবেই প্রতিনিয়ত এক এক করে হাতছাড়া হয়ে যাচ্ছে আমাদেরই সম্পদ।

এই যে জবাবদাহিতার অভাব, নিজেদের সম্পদ নিজেদের করে রাখার দায়বদ্ধতার অভাব, এই দায় কাদের? কবে ঘুম ভাঙবে বাংলাদেশের প্যাটেন্ট, শিল্প-নকশা ও ট্রেডমার্কস অধিদপ্তরের (ডিপিডিটি’) কর্মকর্তাদের?

নিজেদের অধিকার ও সম্পদ নিয়ে আমরা বরাবরই উদাসীন। কেউ এসে নিজেদের সম্পত্তিতে টান না দিলে যেন আমাদের টনক নড়ে না। কৃষ্টিতে, সংস্কৃতিতে এত সমৃদ্ধশালী আমাদের এই দেশটির এটিই প্রথম সম্পদ খোয়ানো নয়। নিজেদের পূর্বপুরুষদের হাতে গড়ে তোলা বহু সম্পদ হারানোর নজির আমাদের আগেও আছে। এর আগে পশ্চিমবঙ্গের মাধ্যমে ভারত ‘রসগোল্লা’ এবং ‘নকশিকাঁথা’র জিআই স্বত্ব নিয়ে গেছে। অথচ দুই পণ্যের জন্মও কিন্তু ছিল পূর্ব বাংলায়।

তাঁতশিল্প আমাদের অতি প্রাচীন এক ঐতিহ্য। কিন্তু আমাদের এই ঐতিহ্যবাহী সম্পদ রক্ষণের দিকে আমরা কতটা যত্নশীল? সংস্কৃতির দিক দিয়ে এতটা ধনী আমাদের এই দেশের কৃষ্টি, শিল্প থেকে এক এক করে এভাবেই হারিয়ে যাচ্ছে বহু ঐতিহ্যবাহী সব শিল্প। কত হাজার তাঁত বন্ধ হয়ে গেছে পেটের তাগিদে, কত লাখ তাঁতশ্রমিক বেকার হয়ে এই ব্যবসা ছেড়েছে সে খবর কে রাখে? কেউ রাখার প্রয়োজনও মনে করে না। অথচ, বিশ্বের কাছে নিজেদের এসব শিল্প তুলে ধরে সম্মান বয়ে আনা কতই না সহজ ছিল আমাদের জন্যে। যে কাজটা ভারত বারংবার করছে। সমালোচনা করলেও তাদের এই সক্ষমতার প্রশংসা করতে দ্বিধা নেই।’

তবে দেরীতে হলেও বাংলাদেশের মানুষের, পেটেন্ট কর্তৃপক্ষের যে টনক নড়েছে এটিই আশার কথা। স্বাভাবিকভাবেই ভারতের এহেন ঘোষণায় বাংলাদেশের মানুষ বর্তমানে ব্যাপক ক্ষুব্ধ। ভারতের মন্ত্রণালয়টির ফেসবুক পোস্টের নিচে বাংলাদেশের হাজারো মানুষ প্রতিবাদ করে যাচ্ছেন। সবার মনে একটিই প্রশ্ন, টাঙ্গাইল শাড়ি কীভাবে ভারতের হয়? আদৌ ভারত কি এ দাবি করতে পারে? টাঙ্গাইল শাড়ি ভারতের বলে দাবি করার পেছনে যেসব যুক্তি দেয়া হচ্ছে সেসব যুক্তি অনেকে খণ্ডনও করছেন। অনেকে আবার এমন মন্তব্যও করেছেন যে,পশ্চিমবঙ্গের জনপ্রিয় নায়িকা সুচিত্রা সেনের বাড়ি বাংলাদেশের পাবনায়। তার সকল কর্ম-কাজ, জনপ্রিয় সব সিনেমা এসকল কিছুই ভারতের। আমরা সেটি জানিও। কিন্তু, এখন জন্মস্থান বাংলাদেশে হওয়ার কারণে কি তার সকল কাজ বাংলাদেশ দাবি করে বসতে পারে? এও কি সম্ভব?

টাঙ্গাইল শাড়ির সঙ্গেই এর নির্দিষ্ট ভূখণ্ড বা ভৌগোলিক অবস্থান যুক্ত। মানে এটি এমন একটি শাড়ি, যার উৎপত্তিই হচ্ছে টাঙ্গাইলে। আর এই টাঙ্গাইল হচ্ছে বাংলাদেশের একটি জেলা।

এ ব্যাপারে বাংলাদেশ জাতীয় কারুশিল্প পরিষদের সভাপতি চন্দ্র শেখর সাহার সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, টাঙ্গাইল শাড়ির জিআই স্বত্বের দাবি কোনোভাবেই ভারত করতে পারে না। কারণ, ভৌগোলিকভাবে টাঙ্গাইল কোনোকালেই পশ্চিমবঙ্গের ছিল না। তারা অন্য নামে তাদের শাড়ির জিআই স্বীকৃতি দিতে পারে, কিন্তু সেটির সঙ্গে টাঙ্গাইল নাম থাকলে কোনোভাবে যৌক্তিক হবে না।

এছাড়া বাংলাদেশ জাতীয় কারুশিল্প পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শেখ সাইফুর রহমান বলেন, টাঙ্গাইল শাড়ির জিআই স্বীকৃতি নিয়ে ভারত যা করেছে, তা মেনে নেওয়ার সুযোগ নেই। জামদানির জিআই হাতছাড়া হওয়ার পর থেকে তারা সুযোগ খুঁজছিল।’

তিনি বলেন, ‘গত মাসে ভারতের এ কার্যক্রমের বিষয়টি জানতে তাঁত বোর্ডের চেয়ারম্যানের সঙ্গে দেখা করলে বুঝতে পারি, তিনি এ-সংক্রান্ত কিছুই জানেন না। এমনকি তাঁত বোর্ডের জিআই পণ্যের আবেদনবিষয়ক কমিটির অনেকেও জানেন না এবং এ-সংক্রান্ত ফাইল দুই মাস ধরে পড়ে আছে। ফলে ভারতের কাছে আপত্তি বা আবেদন জানানোর সুযোগ থাকলেও তা করা যায়নি।’ তবে বাংলাদেশেরও টাঙ্গাইল শাড়ির জিআই স্বীকৃতি পাওয়ার সুযোগ আছে বলে জানিয়েছেন ডিজাইন, পেটেন্ট ও ট্রেড মার্কস অধিদপ্তরের (ডিপিডিটি’) মো. রাশিদুল মান্নাফ কবীর।

তিনি বলেন, ‘তখন এটি হবে বাংলাদেশের টাঙ্গাইল শাড়ি বা আলাদা করে দেশের নাম উল্লেখ থাকবে।’ আমরা বাংলাদেশের মানুষ সকলেই আশা করি ঘরের পণ্য ঘরেই ফিরে আসবে। যে জেলার নাম পর্যন্ত ভারত কোনোভাবে বহন করে না, টাঙ্গাইল নামে যেখানে কোনো জায়গা পর্যন্ত পশ্চিমবঙ্গে নেই সেখানে “টাঙ্গাইল শাড়ি” নামক পণ্যটি ভারত দাবি করে বসে আছে। এর চেয়ে প্রহসন আর কিইবা হতে পারে!

Facebook
Twitter
WhatsApp
Pinterest
Telegram

এই খবরও একই রকমের

তালাক দেওয়ায় স্ত্রীর নাক ও হাত কাটলেন স্বামী’

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি: সিরাজগঞ্জের তাড়াশে সোনাভান খাতুন (৪৫) নামে এক গৃহবধূর নাক ও হাত কেটে দিয়েছেন তালাকপ্রাপ্ত স্বামী। এ ঘটনায় সাবেক স্বামীকে আটক করেছে পুলিশ। আটক

এবার এসএসসি পরীক্ষার্থীকে নেশা খাইয়ে ধর্ষণ

মাদারীপুরে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেওয়া এক শিক্ষার্থীকে নেশা খাইয়ে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে এক বখাটে যুবকের বিরুদ্ধে। ঘটনার পর ওই বখাটে যুবক শিক্ষার্থীটিকে হাসপাতালে রেখে পালিয়েছে।

‘সরব হচ্ছে বিএনপি, আসছে ৩১ দফা’

নিজস্ব প্রতিবেদক: সরকারের নানা অনিয়ম, দুর্নীতি এবং দেশের নানা সমস্যা ও এর সম্ভাব্য সমাধান নিয়ে সেক্টরভিত্তিক ১০ দফা কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ন করছে বিএনপি। এই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন

চিকিৎসার অভাবে মারা যাওয়া বাবার তিন সন্তানের মেডিকেলে চান্স

ঠিকানা টিভি ডট প্রেস: মাফিউল, সাফিউল এবং রাফিউল। একসাথে বেড়ে উঠা তাদের। শিক্ষা জীবনের শুরুটাও একসঙ্গে। জন্মের প্রায় ৫ বছরের মধ্যেই হৃদ্‌রোগে মারা যান বাবা।

আবারও বৃষ্টির আভাস

নিজস্ব প্রতিবেদক: দেশের রাজশাহী, রংপুর ও সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। এটি আগামীকাল রোববার (২১ জানুয়ারি’) আরও বিস্তৃত হতে পারে বলে

মহানায়ক’ পুরস্কার পেলেন অঙ্কুশ

আজ (২৪ জুলাই) মহানায়ক উত্তম কুমারের মৃত্যু দিবস। আর এ বিশেষ দিনটিকেই পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বেছে নিয়েছেন টালিউড তারকাদের সম্মান প্রদানের দিন হিসেবে। চলতি