আপনার জানার ও বিনোদনের ঠিকানা

‘ব্যাংক খাতে বড় বিপর্যয়, নেপথ্যে যত কারণ’

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজনৈতিক সিদ্ধান্তে ব্যাংক দেয়ার পর থেকেই এই খাতের বড় বিপর্যয় শুরু হয়েছে বলে মনে করেন বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর সালেহউদ্দিন আহমেদ। এছাড়া পরিচালকদের অনৈতিক চর্চা, লুটেরাদের দৌরাত্ম্য এবং নিয়ন্ত্রক সংস্থার ব্যর্থতাও সমানভাবে দায়ী বলে মনে করেন তিনি। শনিবার (৩০ মার্চ’) সকালে এক ছায়া সংসদের আলোচনায় সালেহউদ্দিন আহমেদ বলেন, কেবল একীভূতকরণ নয়, সুশাসন ফেরাতে হলে হাত দিতে হবে সমস্যার মূলে।

অর্থনীতির আলোচনার পুরোটাই যেন এখন ব্যাংক খাত ঘিরে। সঙ্কট কাটাতে একের পর এক উদ্যোগ নেয়া হলেও তা বাস্তবায়নের আগেই হাজির হয় নতুন সমস্যা। ফলে একরকম অধরাই থেকে যাচ্ছে এই ব্যবস্থার কার্যকর উন্নয়ন। সম্প্রতি একীভূতকরণ নিয়েও শুরু হয়েছে নানামুখী সমালোচনা। যা জোরালোভাবে তুলে ধরলেন তরুণ বিতার্কিকরাও।

এক বিতার্কিক বলেন, এই নীতিমালা মূলধন বৃদ্ধি করবে। খেলাপি ঋণের হার কমাবে। সর্বোপরি, সুশাসন জোরদার করবে। আরেক বিতার্কিক বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের হিসাবে আমাদের খেলাপি ঋণের পরিমাণ ১ লাখ ৪৫ হাজার কোটি টাকা। কিন্তু আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ’) গণনায় তা ৩ লাখ ৭৭ হাজার কোটি টাকা।

পক্ষে-বিপক্ষের মতামত শেষে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর সালেহউদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘রাজনৈতিক সিদ্ধান্তে ব্যাংক আসার পর থেকেই বড় বিপর্যয়ের শুরু। যা আরও ত্বরান্বিত হয়েছে পারিবারিক মালিকানা, লুটেরাদের দৌরাত্ম্য আর নিয়ন্ত্রক সংস্থার গাফিলতির কারণে। তিনি বলেন, ব্যাংকের পরিচালনা, ব্যবস্থাপনা ও পর্যবেক্ষণ আলাদা। কিন্তু তিন স্তরেই ধস নেমেছে’।

এ সময় বক্তারা ব্যাংক খাতের সুশাসন ফেরাতে ব্যাংকের মালিকানা ও ব্যবস্থাপনা আলাদা করার সুপারিশ করেন।

সালেহউদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘ব্যাংকের মালিকানা পারিবারিক হয়ে গেছে। এই খাতের সুশাসনের অন্তরায় এটি। বাংলাদেশ ব্যাংক উল্টো রথে গেছে। আমার সময়ে পরিবার থেকে দুজন ছিলেন পরিচালক। পরে করা হয় ৪ জন। এখন করা হয়েছে ৩ জন। যাদের মেয়াদ বাড়িয়ে করা হয়েছে নাকি ৯ বছর’।

ডিবেট ফর ডেমোক্রেসির চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ বলেন, ‘যারা ব্যাংক দুর্বল করেছে, একীভূতকরণের ফাঁকে যাতে তারা পালিয়ে যেতে না পারেন, সেই ব্যবস্থা নিতে হবে। ওরা যাতে আরও অর্থপাচার না করতে পারে, সেজন্য তাদের আইনের আওতায় আনতে হবে। অন্যথায় ব্যাংক আরও দুর্বল হতেই থাকবে। আর অন্য আলোচকরা বলেন, সুশাসন ফেরাতে কেবল একীভূতকরণ নয়, সংস্কার শুরু করতে হবে সমস্যার মূল থেকে’।

Facebook
Twitter
WhatsApp
Pinterest
Telegram

এই খবরও একই রকমের

ভালোবাসা দিবসে স্ত্রীর বিচ্ছিন্ন মাথা নিয়ে যুবকের কাণ্ড

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ভালোবাসা দিবসে নিষ্ঠুর হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছেন এক স্বামী। স্ত্রীর ভালোবাসা না পেয়ে তার বিচ্ছিন্ন মাথা হাতে নিয়ে গোটা গ্রাম ঘুরে বেড়িয়েছেন ওই যুবক। এমন

জুমার নামাজ ও খুতবার জন্য সময়সীমা বেঁধে দিলো আমিরাত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: তীব্র তাপপ্রবাহের কারণে জুমার খুতবা সংক্ষিপ্ত করার নিদের্শ দিয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাত। অতিরিক্ত গরমের কারণে মুসল্লিদের কষ্ট কমাতে এই নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে বলে

জয়পুরহাটে কিশোর গ্যাং লিডারসহ গ্রেফতার ৬

সোহেল আহম্মেদ লিও: জয়পুরহাট প্রতিনিধিঃ ৮ ফেব্রুয়ারি,জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার পূর্ববালিঘাটা এলাকা থেকে কিশোর গ্যাং লিডার আরিফুরসহ ৬ কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। গত রাতে

বান্দরবানে যৌথবাহিনীর অভিযানে কেএনএফের সন্ত্রাসী নিহত

নিজস্ব প্রতিবেদক: বান্দরবানে সেনাবাহিনীর যৌথ অভিযানে কুকি চিন ন্যাশনাল ফ্রন্টের (কেএনএফ) এক সন্ত্রাসী নিহত হয়েছে। এ সময় বিপুল পরিমাণ গোলাবারুদ উদ্ধার করা হয়েছে। মঙ্গলবার (৭

রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট সদস্য হলেন পাঁচ শিক্ষক 

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধিঃ সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে অবস্থিত বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের নামে প্রতিষ্ঠিত রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের পাঁচজন শিক্ষককে সিনেট সদস্য হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। ৮ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার

‘রাশিয়ায় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোট গ্রহণের শেষ দিন আজ’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: রাশিয়ায় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোট গ্রহণের শেষ দিন আজ রবিবার (১৭ মার্চ)। ধারণা করা হচ্ছে এই নির্বাচন দেশটির বর্তমান প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে আরও ছয়