আজ বৃহস্পতিবার ,৩০শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১৬ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১লা জিলহজ, ১৪৪৩ হিজরি (বর্ষাকাল)

রাত ৩:৪১

নারায়ে তাকবীর স্লোগানে উত্তাল রাবি ক্যাম্পাস

- Advertisement -
- Advertisement -

ভারতে বিজেপির মুখপাত্র নূপুর শর্মা এবং দিল্লি ইউনিটের প্রধান নবীন কুমার জিন্দাল কর্তৃক মহানবী হযরত মুহাম্মদকে সা: নিয়ে কটূক্তির প্রতিবাদ ও রাষ্ট্রীয়ভাবে নিন্দা জানানোর দাবি জানিয়ে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) শিক্ষার্থীরা।

বৃহস্পতিবার (০৯ জুন) দুপুর ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ বুদ্ধিজীবী চত্বর থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করেন শিক্ষার্থীরা। মিছিলটি ক্যাম্পাসের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ সিনেট ভবন সংলগ্ন প্যারিস রোডে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে মিলিত হয়।

এ সময় শিক্ষার্থীরা ‘নারায়ে তাকবীর, আল্লাহু আকবার, বিশ্বনবীর অপমান, সইবে না রে মুসলমান, তোমার নেতা আমার নেতা, বিশ্বনবী মোস্তফা, ইন্ডিয়ান পণ্য বয়কট বয়কট, আমার আদর্শকে নিয়ে কোনো কটূক্তি নয়, মোদীর দুই গালে, জুতা মারো তালে তালে, নূপুর শর্মা ও নবীন জিন্দালের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই, বিশ্বের মুসলিম এক হও এক হও’ এমনসব স্লোগান দিতে থাকেন।

বিক্ষোভ পরবর্তী সমাবেশে বিশ্ববিদ্যালয় আরবী বিভাগের অধ্যাপক ড. ইফতেখারুল আলম মাসুদ বলেন, পৃথিবীর সবচেয়ে উগ্র সাম্প্রদায়িক রাষ্ট্র ভারত। তারা আমাদের সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ রাসূলকে নিয়ে কটূক্তি করেছে। এছাড়া বিভিন্ন সময়ে ভারতের মুসলমানদের উপর নানাভাবে নির্যাতন চালিয়ে যাচ্ছে দেশেটির সরকার। জাতিসংঘ এ নিয়ে কথা বলেছে। আমরা ৯০ শতাংশ মুসলিমের রাষ্ট্র বাংলাদেশ। সরকারের পক্ষ থেকে তীব্র নিন্দা ও একটা স্পষ্ট প্রতিবাদ চাই। তাছাড়া এদেশে ভারতীয় পণ্য ও টিভি চ্যানেল বন্ধেরও দাবি জানান তিনি।

পপুলেশন সায়েন্স এন্ড হিউম্যান রিসোর্স ডেভেলপমেন্ট বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী আমান উল্লাহ আমান বলেন, মহানবী সা:-এর বিরুদ্ধে কটূক্তি স্বভাবতই মুসলমানদের মনে আঘাত হেনেছে। ভারতের উগ্র হিন্দুত্ববাদী রাজনীতি মুসলমান সংখ্যালঘুদের জন্য বিপজ্জনক। মুসলমানদের নিয়ে তাদের রাজনীতি নোংরামির উচ্চ পর্যায়ে চলে গেছে। রাসূল সা:-এর বিরুদ্ধে এহেন বক্তব্যের তীব্র নিন্দা এবং প্রতিবাদ জানাচ্ছি। সেইসাথে রাষ্ট্রীয়ভাবে ভারতের প্রতি ধর্মীয় সম্প্রীতির আহ্বান জানিয়ে বাংলাদেশের নিন্দা প্রস্তাব জানানোর আহ্বান জানাই।

মানববন্ধনে বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষকসহ প্রায় দুই হাজরের অধিক শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি ভারতীয় একটি টেলিভিশন বিতর্কে অংশ নিয়ে মহানবী হযরত মুহাম্মদ সা: ও তার স্ত্রী আয়েশা রা: সম্পর্কে অবমাননাকর ও কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য দেন নূপুর শর্মা। পরে একই বিষয়ে টুইটারে পোস্ট দেন নবীন কুমার জিন্দাল। এ নিয়ে বিশ্বের মুসলিমদের মাঝে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। ইতোমধ্যে এ ঘটনায় বিশ্বের অনেক মুসলিম দেশ প্রতিবাদ জানিয়েছে।

- Advertisement -

সর্বশেষ খবরঃ

- Advertisement -

আপনার জন্য আরো খবর

উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে