আপনার জানার ও বিনোদনের ঠিকানা

‘নতুন সরকারে মন্ত্রী না থাকায় ক্ষোভ’

নিজস্ব প্রতিবেদক: দ্বাদশ নির্বাচনের সকল আনুষ্ঠানিকতা শেষে গঠিত হয়েছে মন্ত্রিপরিষদ। তবে এতে একদিকে যেমন আনন্দ-উচ্ছ্বাস দেখা দিয়েছে, অন্যদিকে মন্ত্রিত্ববঞ্চিত এলাকার নেতাকর্মী ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের মধ্যে হতাশা দেখা দিয়েছে। মন্ত্রিত্ব না পেয়ে ক্ষোভও প্রকাশ করেছে অনেক অঞ্চলের মানুষ। গণমাধ্যমের প্রতিবেদনসূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

প্রতিবেদনটি বলছে, গত ৭ জানুয়ারি সদ্য সমাপ্ত ভোটের পর ১০ জানুয়ারি শপথ নেন নবনির্বাচিত সংসদ সদস্যরা। পরদিন ১১ জানুয়ারি শপথ নেন প্রধানমন্ত্রীসহ মন্ত্রিসভার ৩৭ সদস্য। এতে ঢাকা, ফরিদপুর ও কুমিল্লা থেকে ২৫ মন্ত্রীর মধ্যে ১৩ জনকে নেওয়া হয়েছে। ১১ প্রতিমন্ত্রীর মধ্যে আছেন ঢাকা ও গাজীপুরের চার সংসদ সদস্য। বিদায়ী সরকারে গুরুত্ব পাওয়া সিলেট অঞ্চল এবার মন্ত্রী পেয়েছে বেশ কম। বৃহত্তর বরিশাল কোনো পূর্ণ মন্ত্রী পায়নি। রংপুর ও রাজশাহী বিভাগও তুলনামূলক কম গুরুত্ব পেয়েছে।

বিভাগওয়ারি হিসাব করলে ঢাকা ও চট্টগ্রাম বিভাগই মন্ত্রী পেয়েছে বেশি। এর মধ্যে ঢাকায় চারজন পূর্ণ মন্ত্রীর পাশাপাশি রয়েছেন দুজন প্রতিমন্ত্রী। এর বাইরে ঢাকা বিভাগের গোপালগঞ্জ দুটি, ফরিদপুর, রাজবাড়ী, গাজীপুর, নরসিংদী ও কিশোরগঞ্জ একটি করে মোট ১০টি পূর্ণ মন্ত্রী পেয়েছে। চট্টগ্রাম বিভাগে বৃহত্তর কুমিল্লায় চারটি, নোয়াখালীতে একটি এবং চট্টগ্রাম জেলায় দুটিসহ মন্ত্রিত্ব মিলেছে সাতটি। এর বাইরে রংপুর, খুলনা, সিলেট ও ময়মনসিংহ বিভাগ দুটি করে মন্ত্রিত্ব পেয়েছে। একটিও পায়নি বরিশাল বিভাগ। প্রতিমন্ত্রীদের মধ্যেও ঢাকা বিভাগের প্রাধান্য বেশি। ১১ জন প্রতিমন্ত্রীর মধ্যে ঢাকা ও গাজীপুরে আছেন দুজন এবং টাঙ্গাইলে একজন মিলে ঢাকা বিভাগেরই আছেন ৫ জন। বাকি ছয়জনের মধ্যে উত্তরবঙ্গের দিনাজপুর ও নাটোর, দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল বরিশাল ও পটুয়াখালীতে একজন করে এবং সিলেট ও খাগড়াছড়িতে আছেন একজন করে। এবার মন্ত্রী পায়নি রংপুর অঞ্চল, বৃহত্তর বগুড়া, বৃহত্তর যশোর ও ঝিনাইদহ।

বগুড়ার স্থানীয় নেতাকর্মীরা মনে করেন, একসময় বগুড়াকে বলা হতে বিএনপির ঘাঁটি; কিন্তু ধীরে ধীরে সে অবস্থার পরিবর্তন হচ্ছে। মানুষ আওয়ামী লীগের দিকে ঝুঁকছে, যার কারণে নির্বাচনে আসন বাড়ছে; কিন্তু তাদের সেভাবে মূল্যায়ন করা হচ্ছে না। বগুড়া লেখক চক্রের সভাপতি কবি ইসলাম রফিক বলেন, বগুড়ায় যোগ্য সংসদ সদস্য থাকলেও তাদের সুযোগ দেওয়া হয়নি। মন্ত্রিসভায় আমাদের প্রতিনিধিত্ব না থাকায় দলমত নির্বিশেষে বগুড়ার সব মানুষ কষ্ট পেয়েছে।

শিবগঞ্জ উপজেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীনুর আলম মাস্টার গণমাধ্যমকে বলেন, বগুড়ার উন্নয়ন নিশ্চিত করতে হলে মন্ত্রিসভায় বগুড়ার একজন প্রতিনিধি রাখা প্রয়োজন। তাতে দলের ভাবমূর্তি বাড়ত ও এলাকার উন্নয়ন নিশ্চিত হতো। একই কথা বলেছেন সুশাসনের জন্য প্রচারাভিযান (সুপ্র) সাধারণ সম্পাদক কে জি এম ফারুক। বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহাদৎ হোসেন ঝুনু বলেন, বগুড়ার নির্বাচিত অনেক সংসদ সদস্যই যোগ্য ছিলেন, কিন্তু কাউকে মন্ত্রী করা হয়নি, যা খুব বেদনাদায়ক।

আওয়ামী লীগ-বিএনপি উভয় সরকারের মন্ত্রিসভায় বরাবরই এগিয়ে থাকে বৃহত্তর যশোরাঞ্চল (যশোর, ঝিনাইদহ, মাগুরা ও নড়াইল’) শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন টানা তিনটি সরকারে মন্ত্রিসভাতেও স্থান মিলেছিল যশোরাঞ্চলের সংসদ সদস্যদের। তবে চতুর্থবার সরকার গঠনের পর চারটি জেলার কোনো প্রতিনিধিত্ব মন্ত্রিসভায় নেই। এতে এ অঞ্চলের আওয়ামী লীগ নেতাকর্মী ছাড়াও সাধারণ মানুষ ও বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

অন্যদিকে যশোর শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মাহমুদুল হাসান বুলু বলেন, যশোর সবসময়ই বঞ্চিত। এবার বৃহত্তর যশোরের চারটি জেলা মন্ত্রীশূন্য। আওয়ামী লীগ প্রতিবারই যশোর থেকে বেশিরভাগ সংসদ সদস্য পায়। সে বিবেচনায় এ অঞ্চলে গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রী রাখা প্রয়োজন। সচেতন নাগরিক কমিটি যশোরের সভাপতি শাহীন ইকবাল বলেন, আমাদের যশোর অঞ্চল আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে বড় ভূমিকা পালন করে। আমরা মনে করি, সরকার বিষয়টির দিকে সুদৃষ্টি দেবে।

গত ৪টি সংসদ নির্বাচনে ঝিনাইদহের ৪টি আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী জয়লাভ করার পরও মন্ত্রিসভায় কারও ঠাঁই না হওয়ায় জেলাবাসী হতাশ। সমাজকর্মী কামারুজ্জামান পিন্টু বলেন, ঝিনাইদহ থেকে যারা সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন, তারা সবাই মন্ত্রী হওয়ার যোগ্যতা রাখেন; কিন্তু এক দশকেও গুরুত্বপূর্ণ এ জেলা থেকে কেউ মন্ত্রী হননি।

খুলনা বিভাগে ২০১৪ ও ২০১৮ সালের মন্ত্রিসভায় চারজন করে থাকলেও এবার স্থান পেয়েছেন দুজন। তারা হলেন খুলনা-৫ থেকে নির্বাচিত নারায়ন চন্দ্র চন্দ ও মেহেরপুর-১ আসনের এমপি ফরহাদ হোসেন। ২০১৮ সালের মন্ত্রিসভায় প্রতিমন্ত্রী থেকে পূর্ণ মন্ত্রী হয়েছেন ফরহাদ হোসেন। তবে বাদ পড়েছেন বাগেরহাটের হাবিবুন নাহার, খুলনার বেগম মন্নুজান সুফিয়ান ও যশোরের স্বপন ভট্টাচার্য্য।

বরিশাল বিভাগে ২০১৪ সালের মন্ত্রিসভায় তিন পূর্ণমন্ত্রী ও মন্ত্রী পদমর্যাদার একজন ছিলেন। ২০১৮ সালের মন্ত্রিসভার শুরুতে দক্ষিণাঞ্চলের প্রতিনিধিত্ব হতাশার হলেও শেষদিকে সম্প্রসারিত পরিষদে আলোকিত হয়েছিল। তবে এবার বিভাগ একজন পূর্ণ মন্ত্রী না পাওয়ায় হতাশা প্রকাশ করেছেন নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষ। প্রতিমন্ত্রী হিসেবে এবার দক্ষিণাঞ্চলের প্রতিনিধিত্ব করছেন বরিশাল-৫ আসনের জাহিদ ফারুক ও পটুয়াখালী-৪ আসনের মুহিবুর রহমান। জাহিদ ফারুক বিগত সরকারের পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী ছিলেন। মুহিবুর রহমান প্রথম জায়গা পেলেন।

সিলেট বিভাগ এক প্রতিমন্ত্রী ও দুজন মন্ত্রী পেয়েছে এবার। মৌলভীবাজার-৪ থেকে প্রথমবারের মতো মন্ত্রী হয়েছেন উপাধ্যক্ষ মো. আব্দুস শহীদ। আর সিলেটের বিশ্বনাথের সন্তান চিকিৎসক সামন্তলাল সেন টেকনোক্র্যাট কোটায় মন্ত্রী হয়েছেন। সিলেট-২ আসন থেকে নির্বাচিত শফিকুর রহমান চৌধুরী পেয়েছেন প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব। বিপরীতে ঠাঁই হয়নি পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন, প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ, পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান এবং পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিনের। এ ছাড়া নির্বাচনে জয়ী হতে পারেননি বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী।

ময়মনসিংহ-৯ থেকে নবনির্বাচিত এমপি মেজর জেনারেল (অব.) আবদুস সালাম ও ধর্মপ্রতিমন্ত্রী ফরিদুল হক খানকে পদোন্নতি দিয়ে পূর্ণ মন্ত্রী করা হয়েছে। ২০১৯ সালের সংসদে টেকনোক্র্যাট কোটায় ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পান নেত্রকোণার মোস্তাফা জব্বার। এবার তিনি বাদ পড়েছেন।’

Facebook
Twitter
WhatsApp
Pinterest
Telegram

এই খবরও একই রকমের

গণমাধ্যমকর্মীদের চাকরি নিয়ে আসছে নতুন নির্দেশনা: আরাফাত’

নিজস্ব প্রতিবেদক: গণমাধ্যমকর্মীদের চাকরির নিরাপত্তা বিষয়ে সরকার সংশ্লিষ্ট স্টেকহোল্ডারদের সঙ্গে আলোচনা করে নতুন নির্দেশনা দিবে বলে জানিয়েছেন তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক মোহাম্মদ এ আরাফাত।

পাল্টে গেল কক্সবাজারের সুগন্ধা বিচের নাম

ঠিকানা টিভি ডট প্রেস: কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের সুগন্ধা বিচের নাম পরিবর্তন করে বঙ্গবন্ধু বিচ করা হয়েছে। একই সঙ্গে সুগন্ধা বিচ ও কলাতলী বিচের মধ্যবর্তী ফাঁকা

সুদের টাকা না দিতে পেরে মহাসিনকে হত্যা, আটক লিখনের স্বীকারোক্তি

জেমস আব্দুর রহিম রানা: চড়া সুদের টাকা দিতে না পারায় গালিগালাজ করেছিলো হত্যার শিকার হওয়া মহাসিন। সেই রাগে অফিসের মধ্যেই ইলেক্ট্রিক তার দিয়ে প্রথমে শ্বাসরোধ

বাড়ছে যমুনার পানি, তলিয়ে যাচ্ছে ফসলি জমি

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল ও ভারী বৃষ্টির ফলে দ্রুত বাড়ছে সিরাজগঞ্জে যমুনা নদীর পানি। সেই সঙ্গে বাড়ছে অভ্যন্তরীণ করতোয়া, ফুলজোড় ও

৫২ বছর পর ফের চাঁদে নামল মার্কিন মহাকাশযান’

ঠিকানা টিভি ডট কম: ৫২ বছর পর চাঁদে আবার মার্কিন মহাকাশযান। তবে এবার মহাকাশযানটি বেসরকারি সংস্থার তৈরি। এর মধ্য দিয়ে এই প্রথম কোনো বেসরকারি সংস্থার

ফোনে আসছে পারমাণবিক ব্যাটারি, চার্জ ছাড়াই চলবে ৫০ বছর’

ঠিকানা টিভি ডট প্রেস: বারবার ফোন চার্জ দেওয়ার ঝামেলার অবসান হতে চলেছে। কারণ চীনা টেক কোম্পানি ‘বেটা ভোল্ট’ আনতে চলেছে এক নতুন ধরনের ব্যাটারি। প্রতিষ্ঠানটি