আপনার জানার ও বিনোদনের ঠিকানা

ড. ইউনূসের ব্যাপারে কি সরকার নমনীয় হচ্ছে’

নিজস্ব প্রতিবেদক: শান্তিতে নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ ড. মুহাম্মদ ইউনূস শ্রম আদালতের একটি মামলা ছয় মাসের কারাদণ্ডে দণ্ডিত হয়েছেন। কিন্তু তাকে জেলে যেতে হয়নি। কারাদণ্ডের পর ওই আদালত থেকে তিনি আগাম জামিন পেয়েছেন। আগামী মাসে তিনি শ্রম আদালতের মামলার রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করবেন। ইতোমধ্যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ১২ জন সিনেটর ড. মুহম্মদ ইউনূসের প্রতি ন্যায়বিচার করার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। ড. মুহাম্মদ ইউনূস ইস্যুতে নির্বাচনের আগে সরকার যত সক্রিয় এবং সচেতন ছিল এখন সে ব্যাপারটিতে ততটাই উদাসীন।’

বিভিন্ন মহলে প্রশ্ন উঠেছে, যেহেতু নির্বাচন পার হয়ে গেছে এখন সরকার ড. ইউনূসের ব্যাপারে অনেকটাই নমনীয় এবং ইউনূসের সঙ্গে বিরোধ গুলোকে এখন আওয়ামী লীগ তার অগ্রাধিকার তালিকা থেকে দূরে সরিয়ে রেখেছে। ড. মুহাম্মদ ইউনূসের সঙ্গে আওয়ামী লীগের দূরত্ব সৃষ্টি হয়েছিল এক-এগারোর সময়। এ সময় শান্তিতে নোবেল জয় করার করে ড. মুহাম্মদ ইউনূস একটি রাজনৈতিক দল গঠন করার উদ্যোগ গ্রহণ করেছিলেন। এই প্রক্রিয়ার ধারাবাহিকতায় দেশে এক-এগারো এসেছিল এবং বিরাজনীতিকরণের প্রক্রিয়া চালু হয়েছিল। দীর্ঘ দুই বছর যে অনির্বাচিত এবং অগণতান্ত্রিক সরকার ক্ষমতা দখল করেছিল তার নেপথ্যে কলকাঠি ড. মুহাম্মদ ইউনূস নেড়েছিলেন এমন গুঞ্জন রয়েছে বিভিন্ন মহলে। আর আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে সরাসরি ভাবে ড. ইউনূসের ভূমিকার সমালোচনা করা হয়।

এক-এগারোর পর থেকে ড. মুহম্মদ ইউনূসের সঙ্গে আওয়ামী লীগের প্রকাশ্য বিরোধ লক্ষ্য করা যায়। এই সময় বয়স সীমা অতিক্রান্ত হওয়ায় ড. ইউনূসকে গ্রামীণ ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়। ড. মুহাম্মদ ইউনূস এই সরকারি সিদ্ধান্ত চ্যালেঞ্জ করে আদালতে রিট পিটিশন করেছিলেন। কিন্তু রিট পিটিশনে তিনি পরাজিত হন। সর্বোচ্চ আদালত বয়স অতিক্রান্ত হওয়ায় ইউনূসের অবসর সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপনকে যথার্থ বলে রায় দেয়। এরপর পদ্মা সেতুতে অর্থায়নের যেন বিশ্ব ব্যাংক যেন নেতিবাচক অবস্থান গ্রহণ করে সেজন্য ড. মুহাম্মদ ইউনূস লবি করেছিল এমন তথ্য প্রমাণ হাজির করে আওয়ামী লীগ। যদিও ড. ইউনূসের পক্ষ থেকে বারবার বলা হয়েছে, এই ধরনের কোন ঘটনার সঙ্গে তিনি জড়িত নন। কিন্তু হিলারি ক্লিনটনের যে চিঠি বিশ্ব ব্যাংককে দেওয়া হয়েছিল সেই চিঠিতে ড. ইউনূস প্রসঙ্গটি এসেছে।

হিলারি ক্লিনটন নিজেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ইউনূসকে গ্রামীণ ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক পদে রাখার জন্য টেলিফোন করেছিলেন। এই দ্বন্দ্ব সংঘাত চলতে থাকে। এর মধ্যে দেখা যায় ইউনূস নিয়ন্ত্রিত গ্রামীণ টেলিকমের প্রায় সাড়ে ৩ হাজার কোটি টাকা অর্থপাচার হচ্ছে।’ অন্যদিকে গ্রামীণ টেলিকমের শ্রমিকদেরকে ঠকানোর অভিযোগে ড. ইউনূস সহ বেশ কয়েক জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন শ্রমিকরা। এই মামলা পর্দার আড়ালে টাকা পয়সা দিয়ে মিটিয়ে ফেলার এক ন্যক্কারজনক উদ্যোগ গ্রহণ করেছিলেন ড. মুহাম্মদ ইউনূস। পরবর্তীতে আদালতের উদ্যোগে সব কিছু ফাঁস হয়ে যায় এবং দেখা যায় কিছু কর্মচারীকে উৎকোচ দিয়ে ড. মুহাম্মদ ইউনূস মামলা আদালতের বাইরে ফয়সালা করতে চেয়েছিলেন। এরপর শ্রম আদালতের মামলা দ্রুত নিষ্পত্তি হয় এবং ড. ইউনূসকে ছয় বছরের জেল দেওয়া হয়।

সরকারের বিভিন্ন সূত্রগুলো বলছে, দুটি কারণে ইউনূসের মামলার ব্যাপারে সরকারের আগ্রহ ছিল। প্রথমত, ড. মুহাম্মদ ইউনূস গণতন্ত্র বিরোধী এবং সংবিধান বিরোধী একটি ধারাকে পৃষ্ঠপোষকতা করেন। দ্বিতীয়ত, তিনি আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে বাংলাদেশ এবং বর্তমান সরকারের বিরুদ্ধে লবিং করছেন। নির্বাচন শেষ হয়ে যাওয়ার পর এখন ইউনূসের ব্যাপারে সরকারের ভূমিকা অনেকটা ঢিলেঢালা। এর পিছনে একাধিক কারণ রয়েছে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

প্রথমত, যেহেতু নির্বাচন শেষ হয়ে গেছে এবং সরকার নানা রকম বাধা বিপত্তির পরও একটি সুষ্ঠু নির্বাচন করতে পেরেছে সে কারণে সরকার এখন ইউনূসকে অগ্রাধিকার তালিকা থেকে বাদ দিয়েছে। দ্বিতীয়ত, আন্তর্জাতিক মহল বিশেষ করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সম্পর্ক উন্নয়নে সরকার গুরুত্ব দিচ্ছে। নির্বাচনের আগে যা হবার হয়ে গেছে, এখন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে একটি সুসম্পর্ক গড়ে তোলার একটি উদ্যোগ আওয়ামী লীগের রয়েছে। সেই উদ্যোগের অংশ হিসেবেই ইউনূসের প্রতি সরকার হয়তো কিছুটা হলেও সহানুভূতিশীল। আর এই দুটি কারণেই ড. মুহাম্মদ ইউনূসের ইস্যুটি এখন আস্তে আস্তে আড়ালে চলে যাচ্ছে বলেই অনেকে মনে করেন।’

Facebook
Twitter
WhatsApp
Pinterest
Telegram

এই খবরও একই রকমের

৪১ তম বিসিএসে চৌহালীর ৩ জন সুপারিশ প্রাপ্ত

চৌহালী (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি ৪১তম বিসিএসের চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশ করেছে সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি)। বৃহস্পতিবার পিএসসির ওয়েবসাইটে এ ফলাফল প্রকাশ করা হয়। ৪১তম বিসিএসে সিরাজগঞ্জের দুর্গম

বরগুনায় প্রেমকাণ্ডে বেসামাল প্রেমিক, বন্ধুকেও আঘাত’

নিজস্ব প্রতিবেদক: বরগুনায় প্রেমিকাকে কিউট বলায় কলেজপড়ুয়া ছাত্রলীগ কর্মীকে দলবল নিয়ে বেধড়ক মারধর করে ইট দিয়ে মাথা ফাটিয়ে দিয়েছে অপর এক ছাত্রলীগ কর্মী। শনিবার ১৭

সৌদি থেকে আনা জমজম কূপের পানি বিক্রি অবৈধ: ভোক্তা অধিদপ্তর

ঠিকানা টিভি ডট প্রেস: ধর্মীয় অনুভূতি পুঁজি করে চটকদার বিজ্ঞাপন দিয়ে পণ্য বিক্রি না করতে ব্যবসায়ীদের সতর্ক করেছে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। রোববার (১৪ জানুয়ারি’)

‘যুগের পরিবর্তনে আধুনিক সম্পর্কের দৃষ্টি ভঙ্গিতেই কি বাড়ছে বিবাহবিচ্ছেদ’

ঠিকানা টিভি ডট প্রেস: সামাজিক একটি বন্ধন হচ্ছে বিয়ে। বিয়ের মাধ্যমে একটি বৈধ চুক্তিতে নারী-পুরুষ দুজন দাম্পত্য সম্পর্ক স্থাপন করে, কখনও পারিবারিক সম্মতিতে, আবার কখনওবা

গরুর ট্রাক ধাওয়া করে থামাতে গিয়ে ছাত্রলীগ কর্মী নিহত’

নিজস্ব প্রতিবেদক: গরুবোঝাই ট্রাক থামাতে গিয়ে ট্রাক থেকে পড়ে মেহেদী হাসান মিম (২২) নামের এক ছাত্রলীগ কর্মী নিহত হয়েছেন। শনিবার (২০ জানুয়ারি’) রাত ১০টায় বগুড়ার

‘বাংলাদেশের নির্বাচন নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের আনুষ্ঠানিক অবস্থান আসছে’

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশের নির্বাচন নিয়ে এখনো যুক্তরাষ্ট্র তার আনুষ্ঠানিক রিপোর্ট প্রকাশ করেনি। যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে নির্বাচন পরবর্তী একটি সংক্ষিপ্ত প্রতিবেদন দেওয়া হয়েছে। সেই সংক্ষিপ্ত প্রতিবেদনে