আপনার জানার ও বিনোদনের ঠিকানা

কোল্ড ড্রিংকস পান নিয়ে ইসলাম কী বলে?

প্রতিদিন জীবনধারণের জন্য নিয়মিত খাবারের বাইরেও হরেক রকমের খাবার গ্রহণ করে থাকি আমরা। এর সঙ্গে সৌখিন ও আয়েশি খাবারও থাকে অনেক। সৌখিন পানীয় হিসেবে বাজারে প্রচলিত রয়েছে বেশ কিছু কোমল পানীয় বা কোল্ড ড্রিংকস। এর মাঝে অন্যতম হলো- পেপসি, সেভেন আপ, স্প্রাইট, স্পীড, টাইগার, মজো, ক্লেমন। 

এই কোল্ড ড্রিংকসগুলো হালাল খাবার হিসেবে কতটা গ্রহণযোগ্য বা এর ইসলামী দৃষ্টিকোণ নিয়ে অনেকের মাঝে সন্দেহ দেখা যায়।  এ বিষয়ে ইসলামী আইন ও ফেকাহশাস্ত্রবিদেরা বলেন, বাজারে সহজলভ্য পেপসি, সেভেন আপ, স্প্রাইট, স্পীড, টাইগার, মজোসহ অন্যান্য কোল্ড ড্রিংকস সম্পর্কে শরয়ী হুকুম বলতে হলে কয়েকটি বিষয় সম্পর্কে আগে জেনে নিতে হবে। তাহলো

যদি হারাম বস্তু মিশ্রণ করা হয়ে থাকে, তাহলে তার প্রসেসিংটা কী? এবং হারাম বস্তু মিশ্রণের পর এই খাবারে তার পূর্বের অবস্থা (হারামের প্রভাব) বহাল থাকে নাকি তা পরিবর্তন হয়ে যায়?

উপরের এই বিষয়গুলো জানা সাপেক্ষে এর উত্তর দেওয়া সহজ এবং সম্ভব। তবে ইলমে ফিকাহর একটি মূলনীতি অনুযায়ী আলেমরা বলেন-

হারাম কোন বস্তু যেমন শুকর ইত্যাদিকে যদি এমনভাবে রিফাইন করা হয় যে, এসবের কোন মৌলিকত্ব অবশিষ্ট না থাকে, তাহলে এই বস্তু বা পানীয় ব্যবহার করা জায়েজ আছে। আর যদি হারাম বস্তু মিশ্রণের পর তার মৌলিকত্ব অবশিষ্ট থাকে, তাহলে সেই বস্তু যার সঙ্গে মিশ্রিত করা হবে, তা ব্যবহার করা জায়েজ হবে না। -(নিহায়াতুল মুহতাজ লির রামালি-৮/১২)

ফাতওয়ায়ে হিন্দিয়া, মাজমাউল আনহুর ও ফাতওয়ায়ে মাহমুদিয়াতে বলা হয়েছে,

والأعيان التي تتخذ منها الأشربة وأسماؤها وماهياتها وأحكامه

অর্থাৎ, মদকে যখন লবণ বা অন্য কিছুর মাধ্যমে সিরকা বানিয়ে ফেলা হয়, তখন তা হালাল হয়ে যায়। (ফাতওয়ায়ে হিন্দিয়া-৫/৪১০, মাজমাউল আনহুর-৪/২৫১, ফাতওয়ায়ে মাহমুদিয়া-২৭/২১৮)

এ মূলনীতির উপর ভিত্তি করে বর্তমান বাজারে বিক্রি করা কোল্ড ড্রিংসেরগুলোর ওপর বিধান দেওয়া হবে। অর্থাৎ যদি এই কোল্ড ড্রিংকসগুলোতে কোন হারাম বস্তু মিশ্রিত হয়, আর মিশ্রিত করার আগে তাকে এমনভাবে প্রসেসিং করে যে, হারাম বস্তুটির মৌলিকত্ব অবশিষ্ট থাকে না, তাহলে তা ব্যবহার করা জায়েজ হবে, আর যদি মৌলিকত্ব অবশিষ্ট থাকে তাহলে তা ব্যবহার করা জায়েজ হবে না।

লেমরা বলেন, তবে আমরা যতটুকু জেনেছি, বর্তমান বাজারে প্রচলিত কোল্ড ড্রিংকসে নাপাক দ্রব্য ব্যবহার করা হয় না, সোডাজাতীয় দ্রব্য ব্যবহার করা হয়, আর যদিও কোন নাপাক দ্রব্য ব্যবহার হয়ে থাকে, তাহলেও তা এমনভাবে রিফাইন হয়ে যায় এসবের কোন নামগন্ধও আর অবশিষ্ট থাকে না, তাই এসব পণ্য ব্যবহারে শরয়ী কোন বাঁধা নেই।

Facebook
Twitter
WhatsApp
Pinterest
Telegram

এই খবরও একই রকমের

বেলকুচিতে নূরুল-মোমেনা ফাউন্ডেশন এর আয়োজনে ফ্রি মেডিকেল ও ডেন্টাল ক্যাম্প অনুষ্ঠিত

উজ্জ্বল অধিকারী, বেলকুচি (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি: সিরাজগঞ্জের বেলকুচিতে খাজা ইউনুস আলী মেডিকেল কলেজ হসপিটাল ও ঐশী ডেন্টাল সার্জারী অর্থোডনটিকস্ এর যৌথ উদ্যোগে ফ্রি মেডিকেল ও ডেন্টাল

রাউজানে শস্যভাণ্ডার খ্যাত কাঁশখালীতে বছরে কোটি টাকার সবজি উৎপাদন

রয়েল দত্ত, রাউজান প্রতিনিধি: কাঁশখালী রাউজানের শস্যভাণ্ডার খ্যাত এলাকা। কাঁশখালী খালের দুই পাড়ের উর্বর ভূমি। এই এলাকাটি উর্বর ভূমি ও খালের পানির সুবিধা থাকায় এই

স্বয়ং রাসূল সাল্লাহু সাল্লাম এর কাছে জেনা করার অনুমতি চাওয়া সেই কাহিনী।

আবু উমামা রাদিয়াল্লাহু আনহু বলেন, এক যুবক রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের কাছে এসে বলল, হে আল্লাহর রাসূল! আমাকে ব্যভিচার করার অনুমতি দিন। এটা শুনে চতুর্দিক

কারাবাস থেকে ৩২ বছর পর মুক্ত শাহজাহান, বিয়ে করে ফের মামলা’

নিজস্ব প্রতিবেদক: বঙ্গবন্ধুর খুনি ও একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধীদের ফাঁসি কার্যকর করা শাহজাহান ভূঁইয়া জল্লাদ হিসেবে সংবাদের শিরোনাম হয়েছিলেন। গত বছর কারাগার থেকে মুক্তি পাওয়ার পরও

তেজগাঁওয়ে বস্তিতে আগুন,নিহত’ ২

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজধানীর তেজগাঁওয়ে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশনের (বিএফডিসি) পাশে মোল্লা বাড়ি বস্তিতে আগুনে পুড়ে দুজনের মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। তবে তাদের নাম পরিচয় জানা সম্ভব

ইসরায়েল গণহত্যা চালাচ্ছে, আমরা গাজা ছাড়ব না : হামাস প্রধান

ফিলিস্তিনি সশস্ত্র গোষ্ঠী হামাস প্রধান ইসমাইল হানিয়া বলেছেন, ফিলিস্তিনি সাধারণ মানুষ কখনো গাজা ছাড়বে না এবং তারা কোথাও যাবে না।   শনিবার (১৪ অক্টোবর) এক